‘জীবনের শেষ অবধি সম্পর্ক এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই’,অরুনিতার সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন পবনদ্বীপ।

হিন্দি টেলিভিশন এর পর্দায় জনপ্রিয় গানের রিয়েলিটি শো হল ইন্ডিয়ান আইডল। ট্যালেন্টেড সব প্রতিযোগিদের গানে মুগ্ধ দর্শকরা। তবে, এবারের ইন্ডিয়াল আইডল ১২ (Indian Idol 12) এ যাদের গান সকলের মন জয় করেছে তাঁরা দুজন হলেন বনগাঁর মেয়ে অরুনিতা (Arunita Kanjilal) ও উত্তরাখন্ড এর পবনদীপ (Pawandeep Rajan)।

দুজনেই বিচারক সহ বলিউডের (Bollywood) তাবড় তাবড় তারকাদের মন জয় করে নিয়েছেন গান গেয়ে। এমনকি রিমেশ রেশমিয়ার সুরে দুটি গানেও প্লেব্যাক করেছেন। ইন্ডিয়ান আইডল টুয়েলভে সেরার শিরোপার লড়াইয়ে যে 2 জন প্রতিযোগী সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছেন তারা হলেন অরুণীতা কাঞ্জিলাল ও পবনদ্বীপ রাজন।

বাংলার মেয়ে অরুনিতার ঝুলিতে রয়েছে বড় বড় প্লেব্যাক সিংগিং এর কন্ট্রাক্ট। ইতিমধ্যেই হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে দুটি গানে কাজ করে ফেলেছেন তিনি। সাথে আছে বাপ্পি লাহিড়ী ও করণ জোহারের সাথে কাজ করবার জন্য সিঙ্গিং কন্ট্রাক্ট। এক কথায় অর্ধেক বলিউড জয় করে ফেলেছেন তিনি। সাথে জয় করেছেন উত্তরাখণ্ডের ছেলে পাবনদ্বীপ এর মন।

সামনেই 15 ই আগস্ট সম্প্রসারিত হতে চলেছে ইন্ডিয়ান আইডলের চূড়ান্ত ফাইনাল পর্ব। কার মাথায় উঠতে চলেছে শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট তার দিকেই তাকিয়ে আছেন দর্শকেরা। প্রতিযোগিতার একদম শেষ ক্ষণে এসে পবনদীপ জানালেন তার মনের কথা! কি বললেন তিনি আসুন জেনে নেওয়া যাক।

“ভয়েস ইন” এর বিজেতা পবনদ্বীপ রাজনের কাছে ইন্ডিয়ান আইডল হলো একটি শিক্ষণীয় জার্নি। তার কথায় এই ইন্ডিয়ান আইডল তাকে প্রস্তুত করেছে প্লেব্যাক সিংগিং এর জন্য। অনেক কিছুই শিখেছেন তিনি এই মঞ্চ থেকে। এদিন পবনদ্বীপ জানালেন যতই ফাইনাল এগিয়ে আসছে মন খারাপ হয়ে যাচ্ছে তার।

এক সময় চিন্তা হতো বাড়ির সকলকে ছেড়ে এতদিন কিভাবে তিনি কাটাবেন, তবে এখানে এসে বন্ধুবান্ধব, হই-হুল্লোড়ের মধ্যে দিয়ে খুব জলদীই যেন এই দিনগুলি কেটেগেল। অরুণীতা এবং পবনদ্বীপের সম্পর্ক নিয়ে জল্পনা বহুদিন ধরেই। তবে সব কিছুকে নাকচ করে দিয়ে তারা যে বিশেষ বন্ধু এমনই দাবি করে এসেছেন প্রথম থেকে।

সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি জানান “এখানে প্রত্যেকেই তার ভাল বন্ধু তবে অরুনিতা হলো তাঁর বিশেষ বন্ধু। তিনি এও বলেন দর্শকদের বোঝা উচিত আমাদের মধ্যে বন্ধুত্বের বাইরে আর কোন সম্পর্ক নেই। এই মুহূর্তে আমাদের মূল ফোকাস হলো আমাদের ক্যারিয়ার বাকি সবকিছু অপেক্ষা করতে পারে। তবে আমি চাই আমাদের এই সম্পর্ক যেন বুড়ো বয়স পর্যন্ত এগিয়ে যায়”।